সোমবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২২, ১২:২৩ পূর্বাহ্ন

খবরের শিরোনাম :
রসিক নির্বাচনে মনোনয়নে বৈধতা পেলেন জাপার মোস্তফা সড়কে দাড়িয়ে মেয়র প্রার্থী মোস্তফার জন্য দোয়া রসিক নির্বাচনের মনোনয়ন জমা দিলেন মোস্তফা অভাবের সংসারে বার্ষিক পরিক্ষা দেয়ার দ্বিমত থাকা শয়নের পরিক্ষার সুযোগ করে দিলো পাগলাপীর বাইক রাইডার্স টিম। মোস্তাফাকে রংপুর সিটি নির্বাচনে লাঙ্গলের মেয়র প্রার্থী ঘোষণা রওশন এরশাদের রসিক নির্বাচনে জাতীয় পার্টির প্রার্থী মোস্তফা রংপুর মহানগর জাপার মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত রসিক নির্বাচনে বর্তমান মেয়র সহ ৭ জনের মেয়র পদে মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ রসিক নির্বাচনের মনোনয়ন কিনলেন মোস্তফা মোস্তফা জাতীয় পার্টির মনোনয়ন পাওয়ায় স্বস্তিতে নেতাকর্মীরা
৬ বছর ধরে যুক্তরাষ্ট্রে, তবুও সরকারি চাকরিতে বহাল

৬ বছর ধরে যুক্তরাষ্ট্রে, তবুও সরকারি চাকরিতে বহাল

নিউজ ডেক্সঃ
রংপুরের গঙ্গাচড়ায় চার মাসের ছুটি নিয়ে ছয় বছর ধরে যুক্তরাষ্ট্রে থাকার অভিযোগ উঠেছে নাজমা খাতুন নামে এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে। তিনি মর্ণেয়া ইউনিয়নের লাখেরাজটারী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক। দীর্ঘদিন অনুপস্থিত থাকার পরও চাকরিতে বহাল তবিয়তে রয়েছেন তিনি। প্রধান শিক্ষকের এমন অনুপস্থিতিতে ভেঙে পড়েছে বিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ও একাডেমিক কার্যক্রম।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ২০১৫ সালের জানুয়ারি মাসে লাখেরাজটারী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক হিসেবে যোগদান করেন নাজমা খাতুন। যোগদানের দেড় বছর পর ২০১৬ সালের জুলাই মাসে দুই মাসের ছুটি নিয়ে তিনি চিকিৎসার জন্য যুক্তরাষ্ট্রে যান। সেখানে থাকা অবস্থায় তিনি আরও দুই মাসের ছুটি নেন। অভিযোগ রয়েছে, তার ছুটি শেষ হলেও তিনি বিদ্যালয়ে আসেননি এবং ছুটিও নেননি। দীর্ঘদিন ধরে বিনা ছুটিতে বিদ্যালয়ে অনুপস্থিত থাকলেও তিনি চাকরিতে বহাল তবিয়তে রয়েছেন।

বিষয়টি উপজেলা শিক্ষা অফিসে অবগত করা হলেও ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে এখন পর্যন্ত কোনো ব্যবস্থা নেয়নি কর্তৃপক্ষ। এনিয়ে শিক্ষার্থীদের অভিভাবকসহ এলাকাবাসীর মাঝে ক্ষোভ বিরাজ করছে। তারা চাকরির বিধিমালা অনুযায়ী ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে দাবি জানান।

বর্তমানে লাখেরাজটারী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকের দায়িত্ব পালন করছেন তারেক রহমান। তিনি বলেন, আমাদের হেড ম্যাডাম চিকিৎসার জন্য চার মাসের ছুটি নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে গেছেন। সেখানে তিনি যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী স্বামীর সঙ্গে বসবাস করছেন। তখন থেকেই আমি ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছি।

এ ব্যাপারে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা নাগমা সিলভিয়া খান বলেন, বিষয়টি আমি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি। কয়েকবার তদন্তও করা হয়েছে। কিন্তু কী কারণে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়নি, তা আমার বোধগম্য নয়। তবে আমি আবারও বিষয়টি ঊর্ধ্বতনদের অবগত করব।

আপনার সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

© ২০২০-২২ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | এনপিনিউজ৭১.কম
Developed BY Rafi It Solution